1. jahidul.moviebangla@gmail.com : Jahidul Islam : Jahidul Islam
  2. savarnews24@gmail.com : savarnews24 :
শনিবার, ০৬ মার্চ ২০২১, ১০:০০ পূর্বাহ্ন
ঘোষনা :
সাভার নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমে সবাইকে স্বাগতম >> আপনার আশপাশের ঘটে যাওয়া ঘটনা জানাতে আমাদের মেইল করুন। ই-মেইল : savarnews24@gmail.com

সাভারে ইউপি চেয়ারম্যান সুজনের বিরুদ্ধে ফের চাঁদাবাজির মামলা

  • সর্বশেষ আপডেট : সোমবার, ১৬ নভেম্বর, ২০২০
  • ৯৯ বার পড়েছেন

সাভার প্রতিনিধি: চাঁদাবাজিসহ নানা অনিয়মের অভিযোগে বরখাস্তকৃত সাভারে বিরুলিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান সুজনের বিরুদ্ধে আবারও কোটি টাকা চাঁদা দাবিসহ প্রানণাশের হুমকি দেয়ার অভিযোগ মামলা দায়ের হয়েছে। শুক্রবার রাতে মেসার্স মোজাফ্ফর এন্টারপ্রাইজের মালিক হাজী মোঃ মোজাফ্ফর হোসেন বাদী হয়ে সাভার মডেল থানায় মামলাটি দায়ের (নং-৩২) করেছেন।

এর আগে ঢাকার চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি সিআর মামলা নং-৭৬০/২০২০ দায়ের করেন ভুক্তভোগী মোজাফ্ফর হোসেন। ওই মামলার দাখিলকৃত কাগজপত্র পর্যালোচনা করে বিজ্ঞ আদালত সাভার মডেল থানাকে সাত কার্যদিবসের মধ্যে মামলা নেয়ার নির্দেশ প্রদান করে।

মামলার আসামীরা হলো- ঢাকার সাভার উপজেলার বিরুলিয়া ইউনিয়নের কাকাবো গ্রামের মৃত আতাউল্লাহ মাদবরের ছেলে সাইদুর রহমান সুজন (৪৩), তার বড় ভাই মোঃ মেরাজ মেরাজ মিয়াসহ (৫৩) অজ্ঞাত পরিচয় ৭ থেকে ৮ জন।

মামলার বাদী মোজাফ্ফর হোসেন বলেন, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভর্সিটি কতৃক তাদের জমিতে মাটি ভরাটের ওয়ার্ক অর্ডার পেয়ে গত ১০ অক্টোবর সকালে বিরুলিয়া ইউনিয়নের বড় কাকাবো এলাকায় যাই। একপর্যায়ে বিরুলিয়া ইউনিয়নের বরখাস্তকৃত চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান সুজন ও তার বড় ভাই মেরাজ মিয়াসহ অজ্ঞাত পরিচয় ৭-৮ জন লোক ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে কাজ বন্ধ করে দেয়ার হুমকি দিয়ে এক কোটি টাকা চাঁদা দাবি করে। আমি চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে সুজন ও তার মেরাজ পিস্তল তাক করে হুমকি দিয়ে বলে চাঁদা না দিয়ে কেউ এখানে কাজ করতে পারবেনা। যদি কেউ কাজ করে তাকে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে তারা চলে যায়।

জানতে চাইলে অভিযুক্ত সাইদুর রহমান সুজন বলেন, আমার জায়গায় অবৈধভাবে বালু ফেলার কারনে আমি ঘটনাস্থলে গিয়ে কাজ বন্ধ রাখতে বলি। তবে চাঁদা দাবি কিংবা হত্যার হুমকি দেয়ার কোন ঘটনা ঘটেনি বলে জানান তিনি।

সাভার মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এএফএম সায়েদ মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আদালতের নির্দেশে সুজন চেয়ারম্যান ও তার ভাইসহ ৭-৮ জনের বিরুদ্ধে একটি চাঁদাদাবির মামলা হয়েছে। এঘটনায় অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য, গত ১৪ অক্টোবর স্থানীয় সরকার বিভাগের উপসচিব স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে সাভার উপজেলার বিরুলিয়া ইউনিয়নের বিতর্কিত চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান সুজনের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি ও দূর্ণীতিসহ নানা অনিয়মের অভিযোগে থানায় মামলা দায়ের ও গ্রেপ্তার হওয়ায় সাইদুর রহমান সুজন কর্তৃক সংঘটিত অপরাধমূলক কার্যক্রম পরিষদসহ জনস্বার্থের পরিপস্থী বিবেচনায় স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন, ২০০৯ এর ধারা ৩৪(১) অনুযায়ী তাঁর স্বীয় পদ হতে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ সংক্রান্ত আরও খবর :